অপূর্বদের বিচ্ছেদে তানজিন তিশার কী

ফ্যাশন শুট ও র‍্যাম্প মডেলিংয়ের মাধ্যমে তিশার কর্মজীবন শুরু হয়। তিশা প্রথম মডেল হন অমিতাভ রেজা চৌধুরী পরিচালিত রবির একটি বিজ্ঞাপনে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে। এটি তার ক্যারিয়ারের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক ছিল।

২০১৫ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর তিশা ট্রেসমি ফ্যাশন শোতে র‍্যাম্প মডেলিং করেছিলেন। তিশা ২০১২ সালে ইউটিউবে প্রচারিত রিজভি ওয়াহিদ এবং শুভমিতার গাওয়া চোখেরি পলকে মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করে তারকা খ্যাতি পান। তিশার অভিনীত এই গানটি ব্যপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। তিনি ইমরান মাহমুদুল এর গান বলতে বলতে চলতে চলতে গানটির মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করেছিলেন। যেটি ইউটিউবে জনপ্রিয়তা পেয়েছিল

অভিনেতা অপূর্ব ও তাঁর স্ত্রী নাজিয়ার বিচ্ছেদের পেছনে ইঙ্গিতপূর্ণ হয়ে উঠেছেন এ সময়ের এক জনপ্রিয় তারকা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে নানা রকম গুঞ্জন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে বিরক্ত অপূর্ব। সোমবার মাঝরাতে এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি। অপূর্বর সেই পোস্টের পর তানজিন তিশার একটি পোস্ট ঘটনাকে করে তোলে আরও রহস্যময়। অপূর্বদের বিচ্ছেদে তানজিন তিশার আসলে কী

অপূর্ব লিখেছেন, ‘ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে গসিপ করা এবং তীর্যক  মিথ্যা বানোয়াট মন্তব্য করে তাদের কষ্ট বাড়িয়ে দেওয়ার মতো খারাপ কাজগুলো থেকে সবাই বিরত থাকবেন। রসালো কোন গল্প তৈরি করে সংবাদ করার চেষ্টা করবেন না  প্লিজ।

অপূর্ব সেখানে এও লিখেছেন,  অত্যন্ত সম্মানের সঙ্গে জানাচ্ছি, আমি এবং আমার স্ত্রী অদিতি (নাজিয়া হাসান) অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ সমাধানের মধ্য দিয়ে আমাদের সম্পর্কের আইনগত ইতি টেনেছি।

কোন সংবাদমাধ্যম এই ব্যাপারে তৃতীয় কাউকে জড়িয়ে কোন ধরনের ভুল সংবাদ প্রকাশ করলে আমি তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আইনগত ব্যবস্থা নেব। অলরেডি প্রকাশিত কিছু সংবাদের লিংক আমি সংগ্রহ করেছি।

আমি অদিতিকে সম্মান করি এবং আজীবন করব। সুতরাং কোনোভাবেই অদিতিকে অসম্মান করে তার পাশে অন্য কারো নাম আমি সহ্য করব না। ভুলে যাবেন না, অদিতি এখন আইনগতভাবে আমার স্ত্রী না থাকলেও সে আমার সন্তানের মা।

অন্যদিকে অপূর্বর এমন পোস্টের কিছুক্ষণ পরেই ‘যারা উদ্বিগ্ন তাদের জন্য  উল্লেখ করে তানজিন তিশা লিখেছেন, ‘আমি সাধারণত গুজবে সাড়া দিই না।

তবে আজ আমি অনুভব করছি যে, কয়েকটি অনলাইন সংবাদপত্রে প্রকাশিত চলমান গসিপ বন্ধ করা উচিত। দয়া করে আমার নামটি ব্যবহার করবেন না, এতে আমার সহশিল্পী এবং তাঁর পরিবারের চলমান পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে। আমি সত্যিকার অর্থে বিশ্বাস করি যে, কেউ আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য ইচ্ছাকৃতভাবে এসব করছে।

ভক্ত এবং শুভাকাঙ্ক্ষীদের উদ্দেশ্যে তানজিন তিশা লিখেছেন দয়া করে এসব মিথ্যা খবর বিশ্বাস করবেন না।

সাংবাদিকদের অনুরোধ করে তিশা লিখেছেন, এই ধরনের ভিত্তিহীন গল্পে তাঁর নাম যেন উল্লেখ না করা হয়। যারা এই কাজটি চালিয়ে যাবেন, তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কয়েক মাস ধরে টানাপোড়েন চলছিল অভিনয়শিল্পী অপূর্বর সংসারে। আলাদা থাকছিলেন স্ত্রী নাজিয়া হাসান ও অপূর্ব।

সহকর্মীদের অনেকেই বলাবলি করছিলেন, তাঁদের বিচ্ছেদের ঘণ্টা বাজল বলে। অপূর্বর মুখ থেকে বিষয়টি জানা না গেলেও জানালেন নাজিয়া। নিজের ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ‘স্টপ কলিং মি ভাবি এভরিওয়ান।

গতকাল রোববার বিকেলে তাঁর এ পোস্ট থেকে মোটামুটি পরিস্কার হওয়া যায় যে, তাঁরা আর একসঙ্গে নেই। এমনকি নিজের প্রোফাইলে ‘ডিভোর্স’ শব্দটিও যুক্ত করে নিয়েছেন নাজিয়া।

২০১১ সালের ১৪ জুলাই নাজিয়া হাসান অদিতিকে বিয়ে করেন অপূর্ব। ২০১৪ সালের জুন মাসে বাবা-মা হন তাঁরা। নাজিয়াকে বিয়ে করার আগে অভিনয়শিল্পী জিয়াউল ফারুক অপূর্ব চুপিচুপি বিয়ে করেছিলেন আরেক অভিনয়শিল্পী সাদিয়া জাহান প্রভাকে। বিয়ের কিছুদিন পরই তাঁদের বিচ্ছেদ হয়।

Write A Comment

eight − 1 =

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close